ফরাসি লিগে থুরাম-পুত্রের কাছে নেইমারের হারে পিএসজি’র বিদায়!

গত পাঁচ বছরে ফরাসি লিগ কাপ, ফরাসি এফএ কাপ— এসব ট্রফিগুলো যে অন্য কোনো ক্লাব জিততে পারে, সেটি যেন ভুলিয়েই দিয়েছিল পিএসজি। নেইমার, কিলিয়ান এমবাপ্পে, এডিনসন কাভানি, অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়া, জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচের মতো তারকাদের কাঁধে চড়ে শেষ পাঁচটা ফরাসি লিগ কাপ, শেষ চারটা ফরাসি এফএ কাপ গেছে পিএসজির ঘরেই। কিন্তু এবার তা আর হলো না। দ্বিতীয় বিভাগের এক অখ্যাত ক্লাব গুইনগাম্পের এর কাছে হেরেই পতন পিএসজির। লিগ কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে এই গুইনগাম্পের কাছে ২-১ গোলে হেরে বিদায় নিয়েছেন নেইমাররা।

নেইমারদের এই প্রতিযোগিতা থেকে বিদায় করে দেওয়ার ক্ষেত্রে মূল ভূমিকা পালন করেছেন কিংবদন্তি ফরাসি ডিফেন্ডার লিলিয়ান থুরামের ছেলে, মার্কাস থুরাম। জয়সূচক গোলটা এসেছে তাঁর পা থেকেই। এর আগে ২০১৪ সালে মঁপিলিয়েরের বিপক্ষে হেরে বাদ পড়ে পিএসজি। পাঁচ বছর পর এবার কোয়ার্টার ফাইনাল থেকেই ছিটকে গেছে শেষ পাঁচ মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন দলটি।

পিএসজির মাঠে বেশ আক্রমণাত¦ক ভাবেই শুরু করে গুইনগ্যাম্প। প্রথমার্ধ গোলশূন্য থাকার পর ম্যাচের ৫৯ মিনিটে বেলজিয়ান রাইট উইংব্যাক থমাস মিউনিয়েরের অপ্রয়োজনীয় এক ফাউলে পেনাল্টি পেয়ে যায় গুইনগাম্প। থুরামের ছেলে মার্কাস অবশ্য সেই পেনাল্টিতে গোল করতে ব্যর্থ হন। দুই পক্ষের দুর্দান্ত লড়াইয়ে প্রথমার্ধ শেষ হয় গোলশূন্যতে। বিরতির পর ৬২তম মিনিটে গোলের দেখা পায় পিএসজি। বেলজিয়ামের ডিফেন্ডার তমা মুনিয়ের কর্নারে হেডে বল ঠিকানায় পাঠান ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড নেইমার। কিন্তু নেইমার কি জানতেন, নাটকের তখনো অনেকটুকুই বাকি?

৭৭ মিনিটে ফরাসি মিডফিল্ডার মার্কাস কোকোকে খারাপভাবে ফাউল করে গুইনগাম্পকে ম্যাচের দ্বিতীয় পেনাল্টিটি উপহার দেন স্প্যানিশ লেফটব্যাক হুয়ান বার্নাত। কঙ্গোর স্ট্রাইকার ইয়েনি এনগবাকোতোর গোলে ম্যাচে সমতা ফেরায় গুইনগাম্প। ম্যাচের একদম শেষ মিনিটে পিএসজির হয়ে পেনাল্টি দেওয়ার ‘হ্যাটট্রিক’ পূরণ করেন জার্মান সেন্টারব্যাক থিলো কেহরার। এবার গোল করতে আর ভুল করেননি থুরাম-পুত্র মার্কাস। ডিফেন্ডারদের শিশুতোষ তিনটি ভুলের কারণে গোল করেও হতাশায় পুড়লেন নেইমার।

৫ বছর পর কাপ প্রতিযোগিতায় পরাজয়ের মুখ দেখল পিএসজি। এই সময়ে ৪৯ ম্যাচ খেলে একটা ম্যাচেও হারেনি তারা। কালকে জিতলে টানা ৫০ ম্যাচ অপরাজিত থাকা হতো। কিন্তু মার্কাস যেন ভেস্তে দিলেন গোটা উপলক্ষটাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.