নেইমারের হ্যাটট্রিক, মেসিকে টপকে গেলেন এমবাপ্পে!

Neymar hat-trick as PSG win, Real and Atletico through

কাল রাতে ১৪ মিনিট থেকে খেলা শুরুর পর রীতিমতো গোলউৎসব করেছে পিএসজি। হ্যাটট্রিক করেন নেইমার। জোড়া গোল তুলে নেন এমবাপ্পে। চ্যাম্পিয়নস লিগে এ নিয়ে তিনটি হ্যাটট্রিক করলেন নেইমার। এ প্রতিযোগিতায় তাঁর চেয়ে বেশি হ্যাটট্রিক শুধু লিওনেল মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর।

বর্ণবাদের অভিযোগে ম্যাচের ১৪ মিনিট পেরুতেই খেলা বন্ধ করে মাঠ ছেড়েছিলেন দুই দলের খেলোয়াড়রা। ফলে এক ম্যাচ শেষ হতে লাগলো দুদিন। এদিন অবশ্য অন্য কিছু নিয়ে ভাবার সুযোগই দিলেন না নেইমাররা। গোলশূন্য ড্র নিয়ে ১৪ মিনিটের পর শুরু হয় খেলা। আর বাকি সময়ে বাসাকহেরিকে পাঁচ গোলের লজ্জায় ডুবায় পিএসজি।
শেষ ষোলর টিকিট প্যারিস সেন্ট জার্মেই (পিএসজি) পেয়ে গিয়েছিল আগেই। তবে চ্যাম্পিয়নস লিগে ইস্তাম্বুল বাসাকহেরির বিপক্ষে ম্যাচটিতে সবার নজর ছিল ভিন্ন এক কারণে। আগের দিন যে লঙ্কাকাণ্ড বেঁধেছিল!

ঘরের মাঠে বুধবার রাতে তুরস্কের দলটিকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছে ফরাসি চ্যাম্পিয়নরা। তাতে ‘এইচ’ গ্রুপের সেরা হয়েই শেষ ষোলতে নাম লিখিয়েছে পিএসজি। দুর্দান্ত এক হ্যাটট্রিক করেন দলটির ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার। বাকি দুই গোল ফরাসি ফরোয়ার্ড কিলিয়ান এমবাপের।

প্রথমার্ধেই ৩–০ গোলে এগিয়ে যায় পিএসজি। এর মধ্যে জোড়া গোল করেন নেইমার। ৪২ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করেন এমবাপ্পে। তাঁকে স্পটকিক নিতে দেওয়ায় পরে নেইমারের প্রশংসা করে পিএসজি কোচ টমাস টুখেল বলেছেন, নেইমারের হৃদয় অনেক বড়। সে সব সময় সতীর্থদের কথা ভাবে।’

চ্যাম্পিয়নস লিগে এর আগে টানা ৯ ম্যাচ গোল পাননি এমবাপ্পে। তাঁকে গোলখরা কাটানোর সুযোগ করে দিয়ে দ্বিতীয়ার্ধে হ্যাটট্রিক তুলে নেন ব্রাজিল তারকা। ৫০ মিনিটে ডি মারিয়ার পাস থেকে হ্যাটট্রিক সূচক গোলটি পেয়ে যান নেইমার। ৬২ মিনিটে এমবাপ্পেকে দিয়েও গোল করান আর্জেন্টাইন উইঙ্গার।

চ্যাম্পিয়নস লিগের ইতিহাসে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে আলাদা দুটি দলের হয়ে ন্যূনতম ২০টি করে গোল করলেন নেইমার। এমবাপ্পেও পেয়েছেন রেকর্ডের দেখা। চ্যাম্পিয়নস লিগ ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে ২০ গোলের দেখা পেলেন তিনি। ২১ বছর ৩৫৫ দিন বয়সে এ রেকর্ড গড়ার পথে মেসিকে (২২ বছর ২৬৬ দিন) পেছনে ফেললেন এমবাপ্পে। এ জয়ে ‘এইচ’ গ্রুপের শীর্ষ দল হিসেবে শেষ ষোলোয় উঠল পিএসজি (৬ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট)।

তাদের সমান পয়েন্ট পেলেও গোল ব্যবধানে পিছিয়ে গ্রুপের রানার্সআপ দল হয়ে শেষ ষোলোয় উঠেছে লাইপজিগ। গ্রুপের তৃতীয় দল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড নেমে গেছে ইউরোপা লিগে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.