আকর্ষণীয় স্কলারশিপসহ গ্রিন ইউনিভার্সিটির অ্যাডমিশন ফেয়ার, চলবে ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত

গ্রিন ইউনিভার্সিটিতে অ্যাডমিশন ফেয়ার, ১০০% পর্যন্ত স্কলারশিপে ভর্তি চলছে

গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশে বিশেষ ছাড়ে ভর্তি মেলা শুরু হয়েছে । এই মেলা আগামী ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে। এ সময়ে শিক্ষার্থীরা ভর্তি ফি’র ৫০% শতাংশ ছাড়ে চলমান সেমিস্টারে ভর্তি হতে পারবেন। 

ভর্তি মেলার সময় ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের জন্য নিম্নোক্ত সূবিধাসমূহ রয়েছে

✅ ভর্তি ফি’র ৫০% শতাংশ ছাড়
✅ ১০ থেকে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত স্কলারশীপ
✅ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, ছাত্রী, ভাই-বোন, স্বামী-স্ত্রী, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও খেলোয়াড়রা সর্বোচ্চ ১০০ শতাংশ পর্যন্ত স্কলারশিপ পাচ্ছেন।
✅ করপোরেট প্রতিষ্ঠানের ২ জন একসাথে ভর্তি হলেও রয়েছে বিশেষ ছাড়।

বাংলাদেশের অন্যতম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় গ্রীণ ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ। এটি ২০০৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।  বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সর্বশেষ প্রতিবেদন ও অভ্যন্তরীণ তথ্যমতে, বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ২০০ জনের অধিক শিক্ষক পাঠদান করছেন। যেখানে অধ্যাপক ১৩জন, সহযোগী অধ্যাপক ১০জন, সহকারী অধ্যাপক ৩০জন এবং প্রায় ১৬০জনের অধিক লেকচারারসহ বেশ কিছু খণ্ডকালীন শিক্ষক রয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে মোট ৩৫জন পিএইচডি ডিগ্রীধারী শিক্ষক রয়েছেন।

সে হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে একজন শিক্ষকের বিপরীতে মাত্র ২৪জন ছাত্র-ছাত্রী পড়াশোনা করছেন। যে সূচক দেশের অন্য অনেক বিশ্ববিদ্যায়ের চেয়ে এগিয়ে। একই উন্নতি কর্মকর্তা-শিক্ষার্থী অনুপাতেও। এখানে মাত্র ২৯জন শিক্ষার্থীর বিপরীতে একজন কর্মকর্তা কাজ করেন। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে রয়েছে সুবিশাল গ্রন্থাগার যাতে রয়েছে প্রায় ২০হাজার বই। বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অন্তত ১০টি গবেষণা প্রজেক্ট পরিচালিত হচ্ছে।  গ্রীণ ইউনিভার্সিটিতে চারটি অনুষদ ও আটটি বিভাগে নিম্নলিখিত কোর্স সমূহ পরিচালিত হচ্ছে।

গ্রিন ইউনিভার্সিটির প্রোগ্রাম সমূহ

  • সিএসই 
  • ইইই 
  • টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং
  • বিবিএ, এমবিএ, ইএমবিএ
  • এলএলবি, এলএলএম
  • সমাজবিজ্ঞান
  • ইংরেজি এবং
  • জার্নালিজম ও মিডিয়া কমিউনিকেশন।

গ্রিন ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাস

প্রতিষ্ঠানের নাম গ্রিন অথচ স্থায়ী ক্যাম্পাসে সবুজের ছোঁয়া থাকবে না; তা কী হয়? সম্ভবত এ কারণেই রাজধানী থেকে খানিকটা দূরে দৃষ্টিনন্দন ‘সবুজ ক্যাম্পাস’ গড়েছে গ্রিন ইউনিভার্সিটি, যা শিক্ষার্থীদের কাছে ইটপাথরের ধূসর পরিবেশ ছাড়িয়ে জেগে ওঠা ‘একটুকরো সবুজ নগরী’ হিসেবেই পরিচিত। পূর্বাচল আমেরিকান সিটিতে নির্মাণাধীন সুপরিসর এ ক্যাম্পাসে শিক্ষার আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা যেমন রাখা হচ্ছে, তেমনি থাকছে পৃথক একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবন এবং হোস্টেল সুবিধা। এছাড়াও নির্মাণাধীন এ ক্যাম্পাসটিতে মাল্টিমিডিয়া ক্লাসরুম, ইন্টারনেট সমৃদ্ধ গ্রন্থাগার, উন্নত ল্যাবরেটরি, বিশাল খেলার মাঠ, ইনডোর গেমস রুম, আইটি সেন্টার, অত্যাধুনিক হল ও কনফারেন্স রুম, মেডিকেল সেন্টার, ক্যাফেটেরিয়া, জিমনেশিয়াম এবং যাতায়াতের জন্য গাড়িসহ আধুনিক অন্যান্য সব সুযোগ-সুবিধা থাকবে। স্বপ্নের এ ক্যাম্পাসে চলছে ভর্তি কার্যক্রম, নিয়মিত ক্লাস ও পরীক্ষা গ্রহণসহ অন্যান্য কর্মকাণ্ড। 

পড়ুন: কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং পড়তে চান, কোন ইউনিভার্সিটিতে পড়বেন দেখে নিন

বর্তমানে গ্রিন ইউনিভার্সিটির বিভিন্ন প্রোগ্রামে ভর্তিচ্ছু মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, ছাত্রী, ভাই-বোন, স্বামী-স্ত্রী, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও খেলোয়াড়রা সর্বোচ্চ ১০০ শতাংশ পর্যন্ত স্কলারশিপ পাচ্ছেন। এসএসসি ও এইচএসসির ফলাফল ও করপোরেট প্রতিষ্ঠান থেকেও ভর্তি হলে রয়েছে বিশেষ ছাড়। 

ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীরা গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের সিটি ক্যাম্পাস ২২০/ডি বেগম রোকেয়া সরণি, ঢাকা-১২০৭ এবং পূর্বাচল আমেরিকান সিটি ক্যাম্পাসে যোগাযোগ করতে পারবেন।

যোগাযোগ:
01324713502, 01324713503, 01324713504,
01324713505, 01324713507, 01324713508

ওয়েব: www.green.edu.bd

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.