সময়ের সেরা নেইমার, সর্বকালের সেরা মেসি-বললেন আলভেস

বয়স হয়েছে ৩৮, পেশাদার ক্যারিয়ারে জিতেছেন রেকর্ড ৪৩ টি শিরোপা। সাবেক বার্সেলোনা, ইউভেন্তুস ও পিএসজি তারকা এখন খেলছেন ব্রাজিলের ক্লাব সাও পাওলোতে। সেখানে খেলেই নিজেকে প্রস্তুত করতে চান কাতার বিশ্বকাপের জন্য। এরই মাঝে চমক হয়ে এসেছে তার টোকিও অলিম্পিকে খেলার ঘোষণা। ব্রাজিলের ২৩ বছরের বেশি বয়সী তিনজন খেলোয়াড়ের একজন আলভেস।

গ্রিন টি আসলেই করোনা, রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, হৃদরোগ, ক্যান্সার প্রতিরোধ করে?

ফিফার সঙ্গে একান্ত সাক্ষাৎকারে আলভেস কথা বলেছেন তার অলিম্পিকে খেলা, সামনের লক্ষ্য, ব্রাজিলের হয়ে আরেকটি বিশ্বকাপ খেলার ইচ্ছা, বেড়ে ওঠার দিন, বার্সেলোনার হয়ে খেলার সময়, নেইমার এবং মেসিকে নিয়ে।

এক প্রশ্নের জবাবে আলভেস বলেন, ‘আমি শুধু তাদের ব্যাপারেই বলতে পারি, যাদের সঙ্গে আমি খেলেছি। বেশ কিছু অসাধারণ প্রতিভা দেখেছি, তবে তারা লম্বা সময় ধরে সর্বোচ্চ পর্যায়ে মান ধরে রাখতে পারেনি। তাই সে আর্জেন্টাইন হওয়ার পরও আমি স্বীকার করছি, মেসিই সর্বকালের সেরা ফুটবলার।’

ওজন বৃদ্ধি, ক্যানসার-ডায়াবেটিক ছাড়াও চিনিতে মারাত্মক রোগ!

তবে মেসিকে সর্বকালের সেরা বললেও জাতীয় দলের সতীর্থ নেইমার জুনিয়রকে বর্তমান সময়ের সেরা ফুটবলার হিসেবে আখ্যা দেন আলভেস। জানিয়েছেন, নেইমার ব্রাজিলিয়ান হওয়ায় সঠিক মূল্যায়ন পান না কখনোই।

আপনার মতে এই মুহূর্তে বিশ্বের সেরা ফুটবলার কে? -এ প্রশ্নের উত্তরে আলভেস বলেন, এই মুহূর্তে নেইমার বিশ্বের সেরা ফুটবলার। আলভেস ভাষায়, ‘নেইমার অত্যন্ত বিরল প্রতিভা। সে উপযুক্ত সম্মান পায় না। আমাদের দেশে সফল হওয়াটা যেন একটি বড় অন্যায়। আমি মনে করি তাকে ব্রাজিলিয়ান হওয়ার মূল্য পরিশোধ করতে হচ্ছে। সে যদি অন্য দেশের হত, যা যা করেছে, যে রেকর্ডগুলো সে ভেঙ্গেছে, সেটার জন্য ব্রাজিলিয়ানরা তাকে আরো উপরে রেখে মূল্যায়ন করতো। নেইমারের জন্য বাচ্চারা ফুটবল খেলাকে ভালবাসে।’

চুল পেকে যাচ্ছে? পাকা চুল কালো করার কয়েকটি ঘরোয়া টিপস!

সঙ্গে যোগ করেন আলভেস, ‘আমি যখন ছোট ছিলাম, ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড়দের যাদুকরী খেলা আমাকে ফুটবলের প্রেমে পড়তে বাধ্য করেছিল, তাদের ভিন্ন কিছু করার ক্ষমতা ছিল, তারা দেখাত ফুটবলটা আসলে কি। এরপর ফুটবল বিরক্তিকর হয়ে গেল- খুবই ট্যাকটিকাল, শারীরিক। ফুটবল হবে ছবির মত, যা হবে সুন্দর। যেটা নেইমারের খেলায় দেখা যায়। তার মতো যাদুকরী আর কেউ নেই। আমি ফুটবলকে খুব ভালবাসি এবং আমি নেইমারের খেলা দেখতেও খুব ভালবাসি।’

সেই যাদুকরী ফুটবলার কারা, যারা আপনাকে ফুটবলের প্রেমে ফেলেছিল? এ প্রশ্নেরে উত্তরে আলভেস বলেন, আমি ভালবাসতাম রোনালদিনিয়ো ও রোমারিওর জাদু। তবে আমার আদর্শ ছিল কাফু। জুয়াজেইরো থেকে এসে আমরা যাদুকরী হওয়ার কথা কল্পনাও করতে পারতাম না। এই জায়গায় আসতে আমাদের লড়াই করতে হয়েছে। আমার সীমানা ছিলেন কাফু। তার গল্প, তিনি যেভাবে লড়াই করতেন সেটা আমাকে অনুপ্রাণিত করেছে। তাই লোকে যখন কাফুর সঙ্গে আমার তুলনা করে আমি সেটা অপছন্দ করি। নিজের ওপর আমার অনেক বিশ্বাস আছে, আমার মনে হয় যেন, আমি হলিউডের অস্কার জিতেছি, তবে কাফুর প্রতি আমার সর্বোচ্চ সম্মান রয়েছে এবং এই ধরনের তুলনা আমি একেবারেই পছন্দ করি না। কাফু একজন কিংবদন্তি।