হার দিয়ে মৌসুম শেষ নেইমারের ক্লাব চ্যাম্পিয়ন পিএসজির

ছয় ম্যাচ হাতে রেখে লিগ ওয়ানের শিরোপা নিশ্চিত করা পিএসজির মৌসুমের শেষটা সুখকর হলো না। স্তাদ দে রাঁসের বিপক্ষে দুই গোলে পিছিয়ে পড়ার পর কিলিয়ান এমবাপে ব্যবধান কমালেও শেষ রক্ষা হয়নি টানা দ্বিতীয়বারের চ্যাম্পিয়নদের।

প্রতিপক্ষের মাঠে শুক্রবার রাতে ৩-১ গোলে হেরেছে টমাস টুখেলের শিষ্যরা। সেপ্টেম্বরে লিগের প্রথম দেখায় রাঁসকে অনায়াসে ৪-১ ব্যবধানে হারিয়েছিল পিএসজি। প্রথমার্ধে বল দখলে পিএসজি অনেকটা এগিয়ে থাকলেও তাদের পারফরম্যান্স ছিল হতাশাজনক। মাঝমাঠ থেকে কোনো আক্রমণই গড়ে ওঠেনি। আক্রমণভাগে কিলিয়ান এমবাপে ও এদিনসন কাভানির কাছে যায়নি কোনো বল। অগোছালো কয়েকটি আক্রমণ করলেও শিরোপাধারীরা বিরতির আগে একটি শটও লক্ষ্যে রাখতে পারেনি।

উল্টো ৩৬তম মিনিটে গোল খেয়ে বসে তারা। সতীর্থের পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে দুরূহ কোণ থেকে দুর্দান্ত এক শটে দূরের পোস্ট দিয়ে বল জালে পাঠান ঘানার ডিফেন্ডার বাবা রম্যান। দ্বিতীয়ার্ধের দশম মিনিটে পাল্টা আক্রমণে ব্যবধান দ্বিগুণ করে স্বাগতিকরা। বল ধরে ডি-বক্সে ঢুকে কোনাকুনি শট নেন ফরাসি মিডফিল্ডার মাচু কাফারো। ঝাঁপিয়ে পড়া ইতালিয়ান গোলরক্ষক জানলুইজি বুফ্ফনের হাতে লেগে বল পোস্ট ছুঁইয়ে ভিতরে ঢোকে।

চার মিনিট পরই ব্যবধান কমিয়ে দলকে ম্যাচে ফেরান আসরের সর্বোচ্চ গোলদাতা এমবাপে। আনহেল দি মারিয়ার ক্রসে হেডে বল সামনে বাড়ান কাভানি আর কাছ থেকে টোকা দিয়ে বাকি কাজটুকু সারেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। চলতি লিগে এটা তার ৩৩তম গোল। বাকি সময়ে উল্লেখযোগ্য কোনো সুযোগই তৈরি করতে পারেনি পিএসজি। উল্টো যোগ করা সময়ের শেষ মিনিটে তাদের জালে আবারও বল পাঠান আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড পাবলো চাভারিয়া। শেষ আট ম্যাচে চতুর্থ ও আসরে মোট পঞ্চম হার নিয়ে মাঠ ছাড়ে এবার দিয়ে মোট অষ্টমবার চ্যাম্পিয়ন হওয়া দলটি।

৩৮ ম্যাচে ২৯ জয় ও চার ড্রয়ে ৯১ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শেষ করল পিএসজি। দিনের অপর ম্যাচে রেনের মাঠে ৩-১ গোলে হারা লিল ৭৫ পয়েন্ট নিয়ে হয়েছে রানার্সআপ। ৭২ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় হয়ে আগামী মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন্স লিগের বাছাইপর্বে জায়গা করে নিয়েছে লিওঁ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *