আইনজীবী হতে চান? উজ্জ্বল ক্যারিয়ার গড়তে কেন ও কোথায় আইন পড়বেন!

বিশ্বে সম্মানজনক পেশাগুলোর মধ্যে অন্যতম আইন পেশা। বাংলাদেশে যারা এই পেশায় নিয়োজিত তাদের বলা হয় অ্যাডভোকেট বা উকিল। আমেরিকায় আইনজীবীকে বলা হয় অ্যাটর্নি। তেমনি অস্ট্রেলিয়ায় আইনজীবীকে বলা হয় ব্যারিস্টার। এভাবে বিভিন্ন দেশে আইনজীবীকে বিভিন্ন নামে অভিহিত করা হয়। দেশে আইন বিষয়ে উচ্চশিক্ষা নেওয়ার অনেক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে। চাহিদার কারণে আইন শিক্ষার বিস্তার ঘটছে ক্রমাগতভাবে। আমাদের দেশে সর্বপ্রথম আইন বিষয়ে কোর্স চালু হয় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, ১৯২১ সালে। বর্তমানে বেশ কয়েকটি সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতাধীন ল কলেজে আইন বিষয়ে পড়ার সুযোগ আছে। দেশের প্রায় প্রতিটি পাবলিক কিংবা প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়েই অন্যতম চাহিদাসম্পন্ন বিষয় আইন। বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন কোর্স পড়ানো হয়। তবে সার্বিকভাবে আইন পড়তে হলে কিছু বিষয় একজনকে জানতেই হবে। এর মধ্যে অন্যতম ‘জুরিসপ্রুডেনস’, যা একাধারে আইনের বিজ্ঞান, দর্শন ও ব্যাকরণ। আইনের প্রাথমিক ধারণাগুলো এখানে আলোচনা করা হয়। তা ছাড়া পড়ানো হয় সাংবিধানিক আইন, যা ছাড়া আমরা এ দেশের আইনগুলো বুঝতেই পারব না। বাংলাদেশে পারিবারিক আইনগুলোতে ধর্মীয় আইনের যে গভীর প্রভাব রয়েছে, তা আমরা বুঝি মুসলিম ও হিন্দু আইন পড়তে গেলে। আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের সদস্য হিসেবে বাংলাদেশকে কী কী আইন মেনে চলতে হবে, তা পড়ানো হয় আন্তর্জাতিক আইনে। তা ছাড়া স্নাতক পর্যায়ে ভূমি আইন, ক্রয়বিক্রয়–সংক্রান্ত আইন, পরিবেশ আইন, ক্রিমিনোলজি, সিপিসি, সিআরপিসি ইত্যাদি সবখানেই পড়ানো হয়। স্নাতকোত্তর পর্যায়ে আরও কিছু বিশেষায়িত বিষয় পড়ানো হয়।

আইন পেশায় উজ্জ্বল ক্যারিয়ার

  • নামের আগে বিচারপতি, অ্যাটর্নি জেনারেল, অধ্যাপক (আইন), ব্যারিস্টার ও অ্যাডভোকেট পদবিগুলো দেখতে কার না ভালো লাগে? শতাব্দীর পর শতাব্দী আইন পেশা স্বীকৃত হয়ে আসছে সম্মান ও ঐতিহ্যের পেশা হিসেবে। আইনজীবী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার সুযোগ তো আছেই, এছাড়াও সহকারী জজ, ব্যাংক, সরকারি-বেসরকারি বা মাল্টিন্যাশনাল কোম্পানীতে লিগ্যাল অ্যাডভাইজার এবং সরকারি-বেসরকারি কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতাসহ আরও অনেক ক্ষেত্র রয়েছে যেখানে আইন বিভাগের গ্রাজুয়েটদের কাজের সুযোগ রয়েছে।
  • আইন পেশার চাহিদা ক্রমান্বয়ে বৃদ্ধি পাওয়ায় আজকাল বিজ্ঞান এবং বাণিজ্য বিভাগ থেকেও অনেকেই আসছেন এই বিষয়ে পড়ার জন্য। কেননা কোন একটি দেশের আইন সে দেশের মেরুদণ্ড স্বরূপ। যে দেশের আইন যত বেশি উন্নত সে দেশ আজ তত বেশি এগিয়ে। আর কোন ব্যক্তিই সে দেশের আইনের ঊর্ধ্বে নয়।
  • দেশের প্রায় প্রতিটি পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে আইনের শিক্ষকের চাহিদা আছে। কমিশনড অফিসার পদমর্যাদায় সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীতে স্বল্পমেয়াদি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে ‘জাজ  ডভোকেট জেনারেল’ হিসেবে যোগ দেওয়া যায়। আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে ‘সহকারী আইনসচিব’ হিসেবে ক্যারিয়ার গড়ার কথাও ভাবতে পারেন।
  • এ ছাড়া বাংলাদেশে অবস্থিত বিদেশি দূতাবাস, ব্যাংক ও বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানে ‘ল অফিসার’ হিসেবে নিয়োগ পাওয়া যায়। আদালতে সরকারি আইন কর্মকর্তা বা পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) হিসেবে নিয়োগ হয়। বিদেশে ইমিগ্রেশন কেস অফিসার বা ল অফিসার হিসেবে কাজ করেন অনেকে। আইনের ডিগ্রিধারীদের জন্য রয়েছে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা—যেমন ইউএনএইচসিআর, ইউএনডিপি, ডব্লিউএইচও, ইউনিসেফ, আইওএম, আইএলও ইত্যাদি প্রতিষ্ঠানে কাজের সুযোগ। আইনি পরামর্শক বা উপদেষ্টা হিসেবেও ক্যারিয়ার গড়তে পারেন। তা ছাড়া মানবাধিকার কিংবা নারী ও শিশু অধিকার নিয়ে যদি কেউ কাজ করতে চান, তবে তাঁর জন্য সেরা প্ল্যাটফর্ম আইনপাঠ।
  • কেউ যদি একটু ব্যতিক্রম কোনো ক্ষেত্রে প্রতিষ্ঠিত হতে চান, চলচ্চিত্রশিল্পে আইন পরামর্শক বা কোর্টরুম–বিষয়ক চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্যকারও হতে পারেন। আইনের বিষয়গুলো গল্পচ্ছলে লিখে হতে পারেন বিখ্যাত ঔপন্যাসিক জন গ্রিশামের মতো লেখকও।

কোথায় পড়বেন

  • নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়
    ফোন: ৮৮৫২০০০,
    ওয়েবসাইট: www.northsouth.edu
  • ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়
    ফোন: ৮৮২৪০৫১-৪,
    ওয়েবসাইট: www.bracuniversity.ac.bd
  • গ্রিন ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ
    ফোন: ০১৭৫৭০৭৪৩০১, ০১৭৫৭০৭৪৩০২
    ০১৭৫৭০৭৪৩০৩, ০১৭৫৭০৭৪৩০৪
    ওয়েবসাইট: www.green.edu.bd
  • আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ (এআইইউবি)
    ফোন: ৯৮৯৭৩৮৭, ৯৮৯৪২২৯
    ওয়েবসাইট: www.aiub.edu
  • ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়
    ফোন: ৯৮৮২৩০৮,
    ওয়েবসাইট: www.ewubd.edu
  • ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ইউআইইউ)
    ফোন: ৯১২৫৯১২-৬,
    ওয়েবসাইট: www.uiu.ac.bd
  • স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটি
    ফোন: ৮১৫৩১৬৮-৬৯,
    ওয়েবসাইট: www.stamforduniversity.edu.bd
  • ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস (ইউল্যাব)
    ফোন: ৯৬৬-১৩০১, ০১৭১৪১৬১৬১৩
    ওয়েবসাইট: www.ulab.edu.bd
  • ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক
    ফোন: ৯৬৬৪৯৫২,
    ওয়েবসাইট: www.uap-bd.edu
  • ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি
    ফোন: ৯১৩৮২৩৪-৫
    ওয়েবসাইট: www.daffodilvarsity.edu.bd
  • ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটি
    ফোন: ৯৬৭৬০৩১-৫,
    ওয়েবসাইট: www.easternuni.edu.bd
  • ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি
    ফোন: ৯৮৮০৭৬০, ৮৮৫৮৭৩৪-৫, ও
    য়েবসাইট: www.diu-edu.net
  • প্রাইমেশিয়া ইউনিভার্সিটি
    ফোন: ৯৮২২১৩৩,
    ওয়েবসাইট: www.primeasia.edu.bd

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *