আবারও নেইমারের গোলে জিতল পিএসজি, গোল করেই দুয়োধ্বনির জবাব

দলবদলের মৌসুমে নানান নাটকের পর ফ্রেঞ্চ ক্লাব প্যারিস সেইন্ট জার্মেইতে রয়ে গেছেন ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার নেইমার জুনিয়র। কিন্তু ক্লাবে তার অবস্থান মানতে পারেনি পিএসজির সমর্থকরা। তাই তো নেইমার মাঠে নামলেই চলতে থাকে একের পর এক দুয়ো। সমর্থকদের দুয়ো এক পাশে রেখে পরপর দুই ম্যাচে নেইমারের করা গোলেই জয় পেয়েছে পিএসজি। রোববার রাতে লিওনের মাঠে খেলতে গিয়ে একপর্যায়ে পয়েন্ট খোয়ানোর শঙ্কায় ভুগছিলো ফ্রান্সের বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। তবে তাদের শঙ্কা দূর করেছেন নেইমার। তার করা একমাত্র গোলে ১-০ গোলের জয় নিয়েই প্যারিসে ফিরেছে ক্লাবটি।

লিওঁর বিপক্ষে নেইমারের গোলটা এসেছে ৮৭ মিনিটে। প্রথম একাদশে নেইমার ছিলেন না, পিএসজিও খুব ভালো খেলেনি। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের বিপক্ষে গোলশূন্য ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়তে হবে? ব্যাপারটা ঠিক পছন্দ হয়নি নেইমারের। পরে নেমে তাই ম্যাচের ভাগ্যই বদলে দিলেন। লিওঁর মাঠে প্রতিপক্ষের সমর্থকেরা কর্নার কিক করতে গেলেই বিভিন্ন ভাবে নেইমারকে হেনস্তা করছিলেন। বোতল ও অন্যান্য জিনিস ছুড়ে মারছিলেন নেইমারের দিকে। কিন্তু নেইমারও জানতেন, কীভাবে সমুচিত জবাব দিতে হয়। তিনি যে কোন মানের খেলোয়াড়, সেটা মুখে নয়, গোল করেই বুঝিয়ে দিলেন নেইমার। খেলার একদম শেষ মুহূর্তে বাম পায়ের দারুণ এক শটে নেইমারের গোলটা লিওঁর সমর্থকদের বুকে একদম শেল হয়ে বিঁধল যেন। আর তা দেখে মোহিত হয়ে গেলেন পিএসজির সমর্থকেরা। নেইমারের প্রতি তাদের দুয়োগুয়ো আনন্দধ্বনিতে পরিণত হতে একদমই সময় নিল না!

নেইমারের এই আগুনে ফর্মে যারপরনাই খুশি দলের কোচ টমাস টুখেলও। নেইমারের আসল রূপ এখনো দেখেনি পিএসজি, এমনটাই দাবি করেছেন তিনি, ‘ভুলে যাবেন না, চার মাসের মধ্যে মাত্র তৃতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেছে নেইমার। এখনো পুরোপুরি সুস্থ না সে। ও আরও ভালো খেলবে। আরও উন্নতি করবে। ওর শারীরিক সক্ষমতা আরও বাড়বে। এমন গুরুত্বপূর্ণ গোল করে ও আরও সহায়তা করবে আমাদের।’ বার্সাতে যাওয়ার স্বপ্ন ছেড়ে দিয়ে নেইমার এখন পুরোপুরি পিএসজি অন্তঃ প্রাণ, এমনটাই মনে করছেন টুখেল, ‘ওর তো আর কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই তাই না? ও আমাদের প্রকল্পের সঙ্গে শতভাগ আছে। সতীর্থদের সঙ্গে ওর সম্পর্ক অনেক স্বাভাবিক। পিএসজিকে জেতানোর জন্য ওর যা যা করার দরকার ও তাই করবে।’ এ জয়ের পর ৬ ম্যাচে ৫ জয়ে পাওয়া ১৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষস্থান মজবুত করেছে পিএসজি। সমান ম্যাচে ৪ জয়ে ১২ পয়েন্ট রয়েছে দুইয়ে থাকা অ্যাঙ্গারসের দখলে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *