বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে হঠাৎ ডাক পাওয়া কে এই মিশু?

১৩ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। আর ১৩ সদস্যের দলে ডাক পেয়েছেন ইয়াসিন আরাফাত মিশু নামে এক নতুন মুখ। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ৪০ রানে ৮ উইকেট নিয়ে রীতিমত হইচই ফেলে দিয়েছিলেন, যা লিস্ট ‘এ’তে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড। ওই এক ম্যাচই জীবন ঘুরিয়ে দিয়েছে মিশুর। ৬ ফুট ১ ইঞ্চি উচ্চতার ডানহাতি এই পেসার তখন থেকেই নির্বাচকদের নজরে। অবশেষে ডাক পেলেন টি-টোয়েন্টিতে, অভিষেক হওয়ারও জোর সম্ভাবনা আছে।
মিশুর ক্রিকেটের প্রতি ভালোবাসা ছোটবেলা থেকেই। পড়ালেখা ফাঁকি দিয়ে চলে যেতেন খেলার মাঠে। তার ক্রিকেটের প্রতি এমন আগ্রহ প্রথম চোখে পড়ে গৃহশিক্ষকের। তিনিই তার বাবা মাকে পরামর্শ দেন ছেলেকে বিকেএসপিতে পাঠানোর। পরবর্তীতে বিকেএসপিতে ভর্তি হন মিশু। সেখান থেকে ধীরে ধীরে উঠে আসা।
ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে থাকছে আফগানিস্তানও। তাদের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে জিম্বাবুয়ে। সিরিজ শুরু ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে। যে সিরিজকে সামনে রেখে ১৩ সদস্যের দলও ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দলে সবচেয়ে বড় চমক ২০ বছর বয়সী পেসার ইয়াসিন আরাফাত মিশু। নোয়াখালীর প্রত্যন্ত অঞ্চলে জন্ম নেয়া এই তরুণ ঘরোয়া ক্রিকেটে এসেছেন বেশিদিন হয়নি। এখন পর্যন্ত খেলেছেন ৭টি প্রথম শ্রেণির আর ৬টি লিস্ট ‘এ’ ম্যাচ।
তবে কি দেখে তাকে বড় মঞ্চে তুলে আনতে চাইছেন নির্বাচকরা? কিছু একটা তো তারা দেখেছেনই! মিশু আসলে প্রথম নজরে আসেন গত বছর। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে ৪০ রানে ৮ উইকেট নিয়ে রীতিমত হইচই ফেলে দিয়েছিলেন, যা লিস্ট ‘এ’তে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড। এবার কম বয়সেই তার অভিষেক হয়ে যেতে পারে জাতীয় দলে। পরের কাজটা কিন্তু করতে হবে মিশুকেই। দেখিয়ে দিতে হবে, হারিয়ে যেতে আসেননি। যাকে আদর্শ মানেন, সেই মাশরাফি বিন মর্তুজার মতোই বিশ্ব ক্রিকেট কাঁপিয়ে দিতেই এসেছেন। মিশু প্রতিভাবান একজন পেসার। দীর্ঘদিন ছিলেন আলোচনায়। এই প্রতিভা রক্ষায় এগিয়ে আসলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডও (বিসিবি)। সুযোগ দিলেন স্বপ্ন পূরণের। এবার বাকী কাজটা করতে হবে মিশুকেই। প্রতিদান দিতে হবে আস্থার। সম্প্রতি বাংলাদেশ ইমার্জিং দলের হয়ে শ্রীলঙ্কা ইমার্জিয়ের বিপক্ষে সিরিজে তার পারফরম্যান্স খুব ভালো না হলেও গত জুলাইয়ে একটি লিস্ট ‘এ’ ম্যাচে আফগানিস্তান ‘এ’ দলের বিপক্ষে বাংলাদেশ ‘এ’ দলের জয়ে অবদান রেখেছিলেন ৩ উইকেট নিয়ে।

ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম দুটি টি-টোয়েন্টির বাংলাদেশ দল:

সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), লিটন দাস, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ, আফিফ হোসেন, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, সাব্বির রহমান, তাইজুল ইসলাম, মেহেদী হাসান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, মোস্তাফিজুর রহমান, ইয়াসিন আরাফাত মিশু।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *