ডায়াবেটিসের লক্ষণ কী কী। কিভাবে নিশ্চিত হবেন আপনার ডায়াবেটিস হয়েছে?

ডায়াবেটিসের লক্ষণ কী কী। কিভাবে নিশ্চিত হবেন আপনার ডায়াবেটিস হয়েছে?

শরীরে ইনসুলিন নামের হরমোনের অভাব ঘটলে, ইনসুলিনের কাজের ক্ষমতা কমে গেলে অথবা উভয়ের মিলিত প্রভাবে রক্তে যদি শর্করার পরিমাণ স্বাভাবিকের চেয়ে বেড়ে যায় তখন তাকে ডায়াবেটিস বলে। আধুনিক শহুরে জীবনে ডায়াবেটিস একটি সর্বজনীন সমস্যা। স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট ডায়াবেটিস কেয়ার জানিয়েছে ডায়াবেটিসের কিছু লক্ষণ। আসুন জেনে নিই লক্ষণগুলো।

দীর্ঘ গবেষণায বিজ্ঞানীরা দেখেছেন, দ্রুত নগরায়ন, খাদ্যাভ্যাস ও জীবনযাপন পদ্ধতিতে পরিবর্তন এবং ক্রমাগত মানসিক চাপের ফলে ডায়াবেটিক রোগীর সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। এবার জেনে নেওয়া যাক ডায়াবেটিস রোগের লক্ষণগুলো-

ডায়াবেটিস রোগের ১২ লক্ষণ
১. ঘন ঘন পিপাসা লাগা
২. মুখ শুকিয়ে যাওয়া
৩. ঘন ঘন ক্ষুধা লাগা
৪. বার বার প্রস্রাব লাগা
৫. রাতে প্রস্রাবের কারণে ঘুম ভাঙ্গা
৬. ওজন কমতে থাকা
৭. চোখে ঝাপসা দেখা
৮. বমি বমি ভাব হওয়া
৯. মাঝে মাঝে মাথা ব্যথা হওয়া
১০. মিষ্টি খাবারের প্রতি আকর্ষণ বেড়ে যাওয়া
১১. একটুতেই উত্তেজিত হওয়া বা মন খারাপ করা
১২. মনসংযোগের অভাব হতে থাকা

অনেক রোগীর ক্ষেত্রে উপরের কোনও লক্ষণই থাকে না। আবার কারও কারও ক্ষেত্রে এক বা একাধিক লক্ষণ থাকতে পারে। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে ডায়াবেটিস ধরা পড়ে অন্য রোগের চিকিৎসা বা চেক-আপ করার সময়।

ডায়াবেটিস নির্ণয়ের উপায়-
১. প্রস্রাব পরীক্ষায় প্রস্রাবে গ্লুকোজের উপস্থিতি
২. রক্ত পরীক্ষায় রক্তের গ্লুকোজ লেভেল বেশি থাকা-
৩. সকালে খালি পেটে ৭.০ মিলিমোল/লিটার বা এর বেশি হলে
৪. র‌্যানডোম ১১.০ মিলিমোল/লিটার বা এর বেশি হলে

পরীক্ষা করে দেখা গেছে কিছু কিছু ব্যাপার ডায়াবেটিস তৈরিতে প্রভাব ফেলে।
১. যাদের বংশে মা-বাবা কিংবা রক্তসম্পর্কীয় নিকটাত্মীয়দের ডায়াবেটিস আছে।
২. যাদের শরীরের ওজন অনেক বেশি এবং যারা শারীরিক পরিশ্রম প্রায় করেনই না।
৩. যাদের দেহে উচ্চ রক্তচাপ এবং মাত্রাতিরিক্ত কোলেস্টেরল আছে।
৪. যারা দীর্ঘদিন স্টেরয়েড জাতীয় ঔষধ ব্যবহার করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *